• বীমা সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সৃষ্টি বাংলাদেশের সর্বপ্রথম বীমা ব্লগে আপনাকে স্বাগতম
আজ সোমবার | ১৪ অক্টোবর, ২০১৯ | ২৯ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | সময়ঃ ০৬:৪৬ অপরাহ্ন

Photo
গ্রাহকদের বীমা দাবি পূরণে ১৪টি বীমা কোম্পানিতে পর্যবেক্ষক নিয়োগ দিয়েছে আইডিআরএ

গ্রাহকদের বীমা দাবির ৫৭২ কোটি টাকা পূরণ না করায় ১৪ কোম্পানিতে সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষক নিয়োগ দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ র্কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। পর্যবেক্ষকরা এসব কোম্পানির কার্যক্রমে সংযুক্ত থেকে বীমা দাবি মেটাতে ভূমিকা রাখবেন বলে আইডিআরএ সূত্রে জানা গেছে।  এদিকে সঠিকভাবে গ্রাহকদের বীমা দাবির টাকা পরিশোধ না করায় দেশে ব্যবসা করা বীমা কোম্পানিগুলো প্রয়োজনীয় এজেন্ট পাচ্ছেন না। একই সঙ্গে দিন দিন অর্থনীতিতে কমে যাচ্ছে বীমার অবদান।

জানা গেছে, বছরের পর বছর ঘুরেও গ্রাহক বা তাদের স্বজনরা বীমা দাবির টাকা পাচ্ছে না কোম্পানিগুলোর কাছ থেকে। পরে তারা টাকা না পেয়ে অভিযোগ করছেন আইডিআরএর কাছে। এ অবস্থায় গ্রাহকদের বীমা দাবি পূরণে ১৪টি জীবন বীমা কোম্পানিতে পর্যবেক্ষক নিয়োগ দিয়েছে আইডিআরএ। আইডিআরএর প্রতিবেদন অনুযায়ী, বীমা কোম্পানিগুলোর কাছে অনিষ্পন্ন দাবির পরিমাণ ৫৭২ কোটি টাকা।

বীমা আইন ২০১০ এর ৭২ ধারা অনুযায়ী, পলিসির মেয়াদ পুর্তির ৯০ দিনের মধ্যে দাবি পরিশোধের বাধ্যবাধকতা রয়েছে।
৯০ দিনের পরে পরিশোধ করা হলে অতিরিক্ত সময়ের জন্য ব্যাংক রেটের সঙ্গে অতিরিক্ত ৫ শতাংশ যোগ করে সুদ দিতে হবে। কিন্তু এ নিয়মের তোয়াক্কা করছে না কোম্পানিগুলো। ফলে বছরের পর বছর ধরে বীমা দাবি অনিষ্পন্ন থেকে যাচ্ছে।
পর্যবেক্ষক নিয়োগ করা কোম্পানিগুলো হলো- বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, গোল্ডেন লাইফ ইন্স্যুরেন্স, সানফ্লাওয়ার লাইফ ইন্সুরেন্স, চার্টার্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স, হোমল্যান্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স, ডায়মন্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স, মার্কেন্টাইল ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, প্রোটেক্টিভ ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, যমুনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, প্রগেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্স, সানলাইফ লাইফ ইন্স্যুরেন্স, বেস্ট লাইফ ইন্স্যুরেন্স এবং মেটলাইফ বাংলাদেশ লিমিটেড।

পর্যবেক্ষক নিয়োগ দিয়ে সম্প্রতি জারি করা সার্কুলারে বলা হয়, বাংলাদেশের বীমা শিল্পের বিকাশের যথেষ্ট সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও কয়েকটি বীমা প্রতিষ্ঠানের দাবি পরিশোধের হার অত্যন্ত কম হওয়ায় এ খাতে আস্থার সংকট রয়েছে। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে বীমা গ্রহীতা অধিক সংখ্যায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করছেন এবং মৌখিকভাবে কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তাদের অবহিত করছেন। এ অভিযোগসমূহ নিষ্পত্তিতে বীমাকারী দীর্ঘসূত্রতার আশ্রয় নিচ্ছেন এবং জবাবদিহির অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। বীমাকারীদের জবাবদিহির মধ্যে আনয়নের নিমিত্তে কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তাদের দ্বারা নিয়মিত পরিবীক্ষণ করার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।


-- ব্লগার মোঃ হাসান এর অন্যান্য পোস্টঃ --
  • সর্বশেষ ব্লগ
  • জনপ্রিয় ব্লগ
3 1 6 1 7
আজকের প্রিয় পাঠক
1 1 8 2 8 1 3 3
মোট পাঠক