• বীমা সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সৃষ্টি বাংলাদেশের সর্বপ্রথম বীমা ব্লগে আপনাকে স্বাগতম
আজ সোমবার | ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | সময়ঃ ১২:০৯ পূর্বাহ্ন

Photo
বীমা খাতে আকর্ষণীয় বেতন কাঠামো তৈরি করা হচ্ছে

বিমা খাতে শৃঙ্খলা আনা, গ্রাহকের আস্থা অর্জন ও উন্নয়নে অটোমেশন প্রকল্প হাতে নিয়েছে আইডিআরএ। বিশ্ব ব্যাংকের সহায়তায় এই প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৩২ কোটি টাকা। আগামী ২০২২ সালে এই প্রকল্পের কাজ শেষ হবে বলে জানিয়েছেন আইডিআরের সদস্য গোকুল চাঁদ দাস।

এছাড়াও বিমা খাতে দক্ষ লোকবল তৈরি, সময়মতো বিমা দাবি পরিশোধ, কোম্পানিগুলোর অনৈতিক কমিশন বন্ধ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে ২৭ কোম্পানিকে পুঁজিবাজারে আসার নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে।

গোকুল চাঁদ দাস বলেন, বিমা খাতে শৃঙ্খলার অভাব রয়েছে। মানুষের আস্থার অভাব রয়েছে। এটা একদিনে তৈরি হয়নি। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে। এগুলো দূর করার জন্য আইডিআর গঠন করা হয়। এখাতে শৃঙ্খলা  আনা এবং মানুষের আস্থা-বিশ্বাস ফেরাতে নানা পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। বিশেষ করে এই খাতটাকে যদি অটোমেটেড করা যায় তাহলে অনেক অনিয়মই দূর হয়ে যাবে। এ কারণে বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৩২ কোটি টাকা। এছাড়াও দক্ষ জনবল তৈরি করতে বিভিন্ন  কাজ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, এখাতে ব্যাংকিং খাতের মতো আকর্ষণীয় কোনো বেতন কাঠামো নেই সে কারণে অনেক মেধাবী বিমায় চাকরি করতে আসেন না। এই আকর্ষণীয় বেতন কাঠামো তৈরির জন্য কাজ করা হচ্ছে।

বিমা খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় কী ধরনের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে জানতে চাওয়া হলে অভিজ্ঞ এই কর্মকর্তা বলেন, অটোমেশন একটা বড় ধরনের পদক্ষেপ। আমরা অটোমেশনের মাধ্যমেই সুশাসনটা করতে চাই। সুশাসনের জন্য আমাদের প্রথম পদক্ষেপ যেটা সেটা হলো সময়মতো গ্রাহকের দাবি পরিশোধ করা। আমরা এটার ওপরে বেশি জোর দিচ্ছি। আমরা চাই গ্রাহকের দাবি পূরণের ক্ষেত্রে আনুষ্ঠানিকভাবে সভা করে জনসম্মুখে দাবিটা পরিশোধ করা হোক। জনসম্মুখে দাবি পরিশোধ করলে মানুষ আকর্ষিত হবে ইন্স্যুরেন্সের প্রতি। আরেকটা দিক হলো পুরো বিমা দাবি না পেলে জনসম্মুখে অভিযোগ করার সুযোগ পাচ্ছে। সুশাসনের এটা একটা দিক। আরেকটা হলো প্রচার। ইন্স্যুরেন্সের প্রচারের দিকেও আমরা আগ্রহী। মিডিয়ায় যারা কাজ করে তাদের বলবো আপনার মানুষ যেন জেনে বুঝে পলিসি করে সে ব্যাপারে প্রচার করুন।

তিনি বলেন, শুধু অটোমেশন নয় পলিসির শর্তগুলো বাংলায় করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। দেখা যায় পলিসির শর্তগুলো ইংরেজি হওয়ায় সাধারণ মানুষ না বুঝে পলিসি করে শেষ পর্যন্ত কিছুই পায় না। এসব অনিয়ম দূর করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।


-- ব্লগার Rajib Khan এর অন্যান্য পোস্টঃ --
আমার সম্পর্কে
  • সর্বশেষ ব্লগ
  • জনপ্রিয় ব্লগ
5 0 4
আজকের প্রিয় পাঠক
1 5 3 9 9 0 4 5
মোট পাঠক