• বীমা সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সৃষ্টি বাংলাদেশের সর্বপ্রথম বীমা ব্লগে আপনাকে স্বাগতম
আজ সোমবার | ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | সময়ঃ ১২:০৮ পূর্বাহ্ন

Photo
সারাবিশ্বে বিমা খাতকে অনন্য মর্যাদায় দেখা হয়: শেখ কবির হোসেন

বিমা খাতের ইমেজ সংকট কাটাতে নানা উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট শেখ কবির হোসেন। ইমেজ সংকট বলতে ‘ক্লেইম’ না  দেয়াকে বুঝায়। অনেক কোম্পানিই আছে বিমা ম্যাচিউর হলে ‘ ক্লেইম’ দেয় না বা গ্রাহককে হয়রানি করে। এসব কারণেই কিন্তু ইমেজ সংকট তৈরি হয়েছে। ‘ক্লেইম’ হলে কোম্পানিগুলো গ্রাহকদের ডেকে এনে বিমার টাকা পরিশোধ করবে। তখন কিন্তু আমরা ইমেজ সংকটে থাকব না।  

বর্তমানে আইডিআরএ’র চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান পাটোয়ারীর নেতৃত্বে যে টিম আছে তারা খুবই যত্নবান এবং সচেষ্ট। তারা চেষ্টা করছেন ইমেজ সংকট কাটানোর। তাদের নেতৃত্বে বিভিন্ন কোম্পানিতে গিয়ে ‘ক্লেইম’দেয়া হচ্ছে। এগুলো গণমাধ্যমে আসছে। এতে ইমেজ সংকট ধীরে ধীরে কেটে যাচ্ছে। আমার তো মনে হয় ডিসেম্বরের মধ্যেই আমরা অনেক দূর এগিয়ে যাব।

২৭ কোম্পানির পুঁজিবাজারে আসার বিষয়ে তিনি বলেন, কোম্পানিগুলো শেয়ার বাজারে আসার ব্যাপারে এরই মধ্যে প্রক্রিয়া শুরু করেছে। আমার মনে হয়, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তারা আবেদন করবে। তবে আবেদন করলেই কিন্তু বিএসইসি দেবে না। কতগুলো আইনকানুন আছে, সেগুলো মানতে হবে। এই শর্তগুলো যারা পূরণ করতে পারবে না, অথবা যাদের সামর্থ্য নেই তারা হয়তো আবার আবেদন করবে। তবে আমরা চাই প্রত্যেকটা কোম্পানি শেয়ার বাজারে যাক।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সারাবিশ্বে বিমা খাতকে অনন্য মর্যাদায় দেখা হয়ে থাকে। বিমা খাত একটি দেশের অর্থনীতিতে বিরাট ভূমিকা পালন করে। অথচ বাংলাদেশে বিমা খাতকে দেখা হয় নেতিবাচক দৃষ্টিতে। নানা অনিয়ম, সময়মতো বিমা দাবি পূরণ না করা, কমিশন প্রদান নিয়ে অনৈতিক ব্যবসা, দক্ষ লোকবলের অভাবে দাঁড়াতে পারছে না বিমা খাত।

আইডিআরের অটোমেশন প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে এসব সমস্যার সমাধান হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। তখন বিমা খাত নতুন যুগে প্রবেশ করবে বলে মন্তব্য করেন তারা।


-- ব্লগার Rajib Khan এর অন্যান্য পোস্টঃ --
আমার সম্পর্কে
  • সর্বশেষ ব্লগ
  • জনপ্রিয় ব্লগ
4 1 4
আজকের প্রিয় পাঠক
1 5 3 9 8 9 5 5
মোট পাঠক