• বীমা সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সৃষ্টি বাংলাদেশের সর্বপ্রথম বীমা ব্লগে আপনাকে স্বাগতম
আজ বুধবার | ২৭ মে, ২০২০ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | সময়ঃ ০৯:২০ পূর্বাহ্ন

Photo
ইন্টেলের মূলধনি ব্যয় দেড় হাজার কোটি ডলার

চিপ জায়ান্ট ইন্টেল ইন্টিগ্রেটেড ডিজাইন ম্যানুফ্যাকচারার হিসেবেও পরিচিত। কারণ শুধু চিপ ডিজাইনই নয়, উৎপাদনের কাজও করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি। চলতি বছর মূলধনি ব্যয় ১ হাজার ৫৫০ কোটি ডলারে পৌঁছানোর পূর্বাভাস দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি, যা আগামী বছর আরো একধাপ বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে। খবর ইয়াহু টেক।

কম্পিউটারের বিভিন্ন চিপের ডিজাইন ও উৎপাদন অত্যন্ত জটিল এবং ব্যয়বহুল। বিশ্বব্যাপী হাতেগোনা কয়েকটি কোম্পানি চিপ ডিজাইনের পাশাপাশি উৎপাদনের কাজ নিজেরা করছে। সেমিকন্ডাক্টর খাতের বাকি প্রতিষ্ঠানগুলো চিপ উৎপাদনে ‘ফ্যাবলেস মডেল’ অনুসরণ করছে। অর্থাৎ তারা চিপ ডিজাইন নিজেরা করলেও উৎপাদনের কাজ করে আসছে চুক্তিভিত্তিক চিপ নির্মাতাদের মাধ্যমে।

ইন্টেলের রাজস্বের সিংহভাগই আসে চিপ বিক্রি থেকে। চলতি বছর রাজস্ব আয় ৭ হাজার ১২০ কোটি ডলারে পৌঁছানোর প্রত্যাশা করছে প্রতিষ্ঠানটি। বাস্তবে এমন হলে এটি হবে ইন্টেলের রাজস্বে বড় ধরনের উল্লম্ফন। যে কারণে ইন-হাউজ চিপ উৎপাদন সম্প্রসারণে মূলধনি ব্যয় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

ইন্টেল গত জানুয়ারিতে চতুর্থ প্রান্তিকের আর্থিক খতিয়ান প্রকাশকালে বিনিয়োগকারীদের জানায়, চলতি বছরের জন্য তারা ৬ হাজার ৫০০ কোটি ডলার রাজস্ব আয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। এর বিপরীতে মূলধনি ব্যয় ১ হাজার ৪০০ কোটি ডলারে পৌঁছানোর পূর্বাভাস দেয়া হয়েছিল। তবে গত এপ্রিলে বার্ষিক রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা বাড়িয়ে ৬ হাজার ৭৫০ কোটি ডলার নির্ধারণ করে প্রতিষ্ঠানটি। একই সময় চলতি বছরের জন্য মূলধনি ব্যয়ের লক্ষ্যমাত্রা একধাপ বাড়িয়ে ১ হাজার ৪৫০ কোটিতে পৌঁছানোর পূর্বাভাস দেয়া হয়েছিল।

দীর্ঘ সময় ধরেই আইফোনের সেলুলার মডেমসহ গুরুত্বপূর্ণ চিপ সরবরাহ করে আসছে কোয়ালকম। তবে পেটেন্ট সম্পর্কিত দ্বন্দ্বের জেরে প্রতিষ্ঠান দুটির সম্পর্কে অবনতি ঘটে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে কোয়ালকমের বদলে ইন্টেলের কাছ থেকে আইফোনের বিভিন্ন চিপ সংগ্রহ শুরু করেছে অ্যাপল, যা ইন্টেলের সেলুলার চিপ ব্যবসায় উল্লম্ফনের প্রধান কারণ।

ইন্টেল সামগ্রিক ব্যবসায় প্রবৃদ্ধির দিক বিবেচনায় নিয়ে গত জুলাই মাসে আরো একবার বার্ষিক রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা বাড়িয়ে ৬ হাজার ৯৫০ কোটি ডলারে পৌঁছানোর পূর্বাভাস দিয়েছিল। একই সঙ্গে চলতি বছরের জন্য মূলধনি ব্যয় ১ হাজার ৫০০ কোটি ডলারে পৌঁছানোর পূর্বাভাস দেয়া হয়।




-- ব্লগার সাথী আক্তার এর অন্যান্য পোস্টঃ --
আমার সম্পর্কে
  • সর্বশেষ ব্লগ
  • জনপ্রিয় ব্লগ
9 7 4 7
আজকের প্রিয় পাঠক
2 2 9 7 4 7 2 3
মোট পাঠক