• বীমা সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সৃষ্টি বাংলাদেশের সর্বপ্রথম বীমা ব্লগে আপনাকে স্বাগতম
আজ শুক্রবার | ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ১০ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | সময়ঃ ০২:৫৫ অপরাহ্ন

Photo
বীমা শিল্পকে সামনে এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধ হওয়া দরকার

সৈয়দ সুলতান রাজ: বিশ্বের উন্নত দেশে বীমা শিল্প কর্মচারীদের মর্যাদা যেখানে তাদের সমাজের উচ্চ শিখরে,সেখানে আমাদের দেশের অবস্থা যেন সমাজে ঠাঁই পাচ্ছেনা। বীমার কথা শুনলে আজ দেশের মানুষ ঘৃণার চোখে দেখে,কর্মীদের পক্ষেও কথা বলার আজ কেউ নেই,আসুন আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে বীমা শিল্পটাকে বাঁচাই,তাহলে বেঁচে যাবে আমাদের এই দেশের ৪০ লক্ষ্য বীমা কর্মজীবি মানুষ । যাদের আজ চাকরীর নিশ্চয়তা নেই,চাকুরীর সার্ভিস রুল নেই,পারিবারিক নিরাপত্তা নেই,পেনশন নেই,গ্রাচ্যুইটি নেই,বীমা কভারেজ নেই,অঙ্গহানির সুবিধা নেই,সাস্থ্য সুবিধা নেই,চিকিৎসা সুবিধা নেই,সামাজিক নিরাপত্তা নেই,গৃহঋণের সুবিধা নেই,আমাদের বিশাল কর্মী বাহিনীর জন্য সরকারী কোন অনুদান নেই,দেশে বিদেশে প্রতিনিধিত্ব করার মতো আমাদের কোন প্লাটফর্ম নেই,এই সব সুবিধা কি আমাদের পেশাজীবিদের পাবার অধিকার নেই ,আমাদের মৌলিক অধিকার নিয়ে কথা বলার আজ কোন সংগঠন নেই,আজ আমাদের  টিস্যু পেপারের মতো ব্যবহার করছে কোম্পানী গুলি ।

প্রয়োজন ফুরালে আমাদের চাকুরী থেকে বাদ দেওয়া হচ্ছে যাদের ব্যসায়ীক নেতৃত্বে মতিঝিলে বীমা টাওয়ার গুলি হয়ছে তাদের আজ চাকুরী নেই রাস্তায় ভিখারীর মতো দাড়িয়ে থাকে পরিবার চালাতে পারছেনা। এসব দেখে আজ কষ্ট হয় অতীতকে সবাই ভুলে গিয়েছে, বীমা শিল্প আজ ধ্বংসের দাড়প্রান্তে,আমরা কথাদিয়ে কথা রাখতে পারছিনা,মেয়াদ শেষে গ্রাহককে লভ্যাংশ দিতে পারছিনা,বীমা গ্রাহকের মুল টাকা পর্যন্ত ফেরত দিতে পারছি না,অপরিকল্পিত ব্যয় আর অব্যবস্থাপনা পুরো বীমা ব্যবস্থাকে ধ্বংসকরে দিয়েছে । কোম্পানী চেক দিয়েছে গ্রাহক ব্যাংকে গিয়ে দেখে কোম্পানীর একাউন্টে টাকা নেই,আমার প্রিয় বীমা কর্মী ভাইদের বিভিন্ন স্থানে আটকে রাখার খবর শুনা যাচ্ছে,বীমা গ্রাহকরা তাদেরকে রাস্তা ঘাটে লান্ছিত করছে,পত্র পত্রিকায় ইলেক্টনিক্স মিডিয়া প্রতিদিন খবর আসছে বিভিন্ন কোম্পানীর দূর্নিতির বিষয় নিয়ে,দুদক তদন্ত করে বের করছে বিভিন্ন কোম্পানীর দূর্নিতির চিত্র,বীমা কোম্পানী গুলি যেখানে আইডিআরের নিয়ম নীতি মেনে চলতে পারছে না,বিভিন্ন এম,ডি রা সারাদেশে বিভিন্ন মামলায় আজ জেলে যেতে হয়,অযোগ্য এমডিরা যখন সাংবাদিকদের সামনে দাড়িয়ে বলে আমরা কোম্পানী থেকে বেতন পাইনা সে নিউজ যখন খবরের কাগজে আসে,বিভিন্ন কোম্পানীর চেয়ারম্যন মহোদয় গন যেখানে বিভিন্ন মামলায় হাজিরা দিতে আদালতের কাঠগড়ায় দাড়িয়ে থাকে তখন লজ্জা হয় আমাদের,বীমাসমাজের এইসব অবক্ষয় দেখলে কেন নতুন করে সাধারন মানুষ বীমা পলিসি করতে চাইবে।

বাঙ্গালী জাতির সপ্নদ্রষ্টা ডিজিটাল বাংলাদেশর স্থপতি,জননেত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশর সাধারন ভূখা নাঙ্গা হত দরিদ্র মানুষ গুলি যেখানে হাঁস মুরগীর ডিম,গরু ছাগল,কৃষকের ফসল বিক্রির টাকা দিয়ে বীমা করে থাকে,গারমেন্ট শ্রমিক আর রিক্সাওয়ালা তার মাথার ঘাম পায়ে ফেলা উপার্জিত টাকা জমিয়ে প্রিমিয়াম দেয়,আর বীমা সমাজের এই সব অব্যবস্থাপনার চিত্র প্রতিদিন তারা যদি মিডিয়াতে দেখতে পায় তখন এই শিল্পকে এই মানুষ গুলি কোন দৃষ্টিতে দেখবে।  

বীমা গ্রাহকরা আজ হতাশ,বীমা কর্মীরাও আজ হতাশ এই চিত্র দেখে সাধারন মানুষ আজ পলিসি নবায়ন করতে চায় না,যারা প্রতি বছর ১০ হাজার কোটি টাকা প্রিমিয়াম এই শিল্পের বিভিন্ন কোম্পানীতে সজ্ঞয় করে থাকে। এভাবে চলতে থাকলে আগামীতে এক ধরনের কালো মেঘ এই শিল্পকে ঘিরে ফেলবে বেকার হয়ে পড়বে আমাদের লক্ষ লক্ষ পেশাজীবি মানুষ,এই অবস্থা দেখে দেশের মানুষ আর নতুন করে বীমা করতে আগ্রহী হবে না। এই চিত্র দেখে কেনই বা এই শিল্পে ক্যরিয়ার গড়তে আমাদের শিক্ষিত বেকার ছেলে মেয়েরা আসতে চাইবে। আজ দলে দলে হারিয়ে যাচ্ছে আমাদের অভিজ্ঞ পেশাজীবিরা, এই পেশার এই দুরবস্থা দেখে পেশা ছেড়ে চলে যাচ্ছে অগনিত কর্মী ভাইয়েরা, আসুন আমরা এই পেশা থেকে হারিয়ে যেতে চাইনা , সকল ভেদাভেদ ভুলে মালিক শ্রমিক একত্রি হয়ে ভবিষ্যতে এই শিল্পের কালো মেঘ কাটাতে সম্মিলিত ভাবে কাজ শুরু করি।

চর্থুত প্রজন্মের জীবন বীমা কোম্পানী আজ দাড়াতে পারছেনা সন্মানিত এমডি মহদোয়দের অদক্ষ্যতা আর দূরর্দশিতার অভাবে । এটা আমাদের জন্য ভাল লক্ষন নয় তাদের পিছে ছুটতে গিয়ে তাদের অদক্ষ্যতার জন্য আজ আমাদের হাজার হাজার অভিজ্ঞ কর্মী-কর্মকর্তা ভাইয়েরা বেকার হয়ে পড়েছে। শিক্ষা যেখানে জাতীর মেরুদন্ড সেখানে এমডিরা তার কর্মচারীদের আজ প্রশিক্ষন দিতে ভুলে গিয়েছে,বীমা কর্মীদের গাইড দেওয়ার আজ কেউ নেই,তাদের দু:খ শুনার ও কেউ নেই,তারা আজ অবিভাবক শূন্য হয়ে পড়েছে ।  

প্রিয় বন্ধুগন আগামী দিনের জন্য আমরা কি রেখে গেলাম আগামী প্রজন্ম আমাদের কি বলবে, আমরা কারো বিরুদ্ধে নই,আমরা কারো প্রতিপক্ষ নাই আমরা চাই শিল্পের উন্নতি , আমরা চাই জাতির উন্নতি আমরা চাই দেশের উন্নতি ব্যংকে টাকা রেখে দ্বিগুন ফেরত পাওয়া গেলে বীমাতে কেন হবে না। ব্যংকে জমানো টাকা ফেরতের সময় ফেরত পাওয়া যায় তাহলে বীমায় কেন ঘুরতে হয় বীমা গ্রাহকের বিশ্বাস বাড়াতে হবে। সমাজে ব্যাংকারদের অবস্হান অনেক উচুতে হলেও আমাদের অবস্থান কেন সবার নিচুতে , আমরা চাই আমাদের মর্যাদা, আমরা চাই আমাদের চাকুরীর নিশ্চয়তা,আমরা কমিশন প্রথা চাইনা,আমরা ব্যাংকের মতো চাকরী চাই তারাও লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করে।

আমাদের এখন সময় ঐক্যবদ্ধ হওয়ার এই সোসাইটি আপনার,আমার,আমাদের একে সকলে মিলে আরো শক্তিশালী করার আহবান জানাই,প্রিয় বন্ধুরা এই সোসাইটি মাধ্যমে আমাদের কোন সদস্যের মৃত্যুতে আমরা তার পরিবারের পাশে আর্থিক সহযোগীতা নিয়ে দাড়াতে পাড়ি,তার রেখে যাওয়া উপযুক্ত সন্তান ও স্ত্রী কে চাকুরীর ব্যবস্থা করে দিতে পাড়ি,কোন সদস্য অসুস্থ্য হলে তার চিকিৎসায় সহযোগীতা করতে পাড়ি,কোন সদস্যের ছেলে-মেয়ে,ভাই-বোনের বিয়েতে আর্থিক সহযোগীতা করতে পাড়ি, আমরা সবাই মিলে বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে আমাদের সামাজিক মর্যাদা বাড়াতে পাড়ি,প্রিয় বন্ধুগন আমাদের সদস্যদের মেধাবী সন্তানদের শিক্ষা বৃত্তি ও এওয়ার্ড প্রোগ্রাম চালু করতে পাড়ি,পরিবারের কেহ রক্ত শূন্যতায় পড়লে আমরা রক্তের ব্যবস্থা করতে পাড়ি,সারাদেশে কোন সদস্য যেকোন দূর্ঘটনা বা বিপদে আপদে পড়লে আমরা তাৎক্ষনিক চিকিৎসা ,অর্থ  ও প্রশাসনিক সহযোগীতা প্রদান করতে পাড়ি,কারো মামলা মোকদ্দমা পারিপার্শিক ঝামেলায় সোসাইটি থেকে আইনি সহায়তা পেতে পাড়ি, চাকুরীর ক্ষেত্রে বিভিন্ন সৃষ্ট জামেলায় আমরা মধ্যস্থতা করতে পাড়ি।  

আমাদের সন্তানদের জন্য শিক্ষা তহবিল গঠন করে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করতে পারবো বলে বিশ্বাস করি। আমাদের পেশাগত দক্ষতা বাড়াতে সোসাইটির অর্থায়নে বিদেশে প্রশিক্ষন গ্রহন করতে পাড়ি ,আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য প্রশিক্ষন ইনিষ্টিটিউট করতে পাড়ি,সমাজে মাথা উঁচু করে দাড়াতে আমাদের যা করনীয় আমরা ভবিষ্যতে সবাই মিলে তাই করবো ইনসাল্লাহ " আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা আজ বাংলাদেশে শিক্ষার মডেল, দেশে শিক্ষার হার তিনি বাড়াতে সক্ষম হয়েছেন,সে সাথে আজ আমাদের কর্মসংস্থান বাড়াতে হবে আমরা সোসাইটির উন্নয়নের মাধ্যমে মানুষকে জাগ্রত করতে পারলে লক্ষ লক্ষ শিক্ষিত বেকার ভাই বোনদের কর্মসংস্হান সৃষ্টি হবে এই বীমাশিল্পে , এতে শিল্পের উন্নয়ন,দেশের উন্নয়ন,জাতীর উন্নয়ন ঘটবে , প্রিয় বন্ধুগন আমরা যেই কোম্পানীতে চাকরী করিনা কেন আমাদের বড় পরিচয় আমরা বীমা শিল্পী এই শিল্পটাকে রাঙানোর দায়িত্ব আমাদের এই শিল্পটাকে বাঁচানোর দায়িত্ব আমাদের,সোসাইটির উন্নয়নে,সোসাইটিকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে সোসাইটিতে যোগদিয়ে বীর সেনানীর মতো নেতৃত্ব দিয়ে ভঙ্গুর বীমা শিল্পকে সামনে এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সকলকে এগিয়ে যাওয়ার আমি আহবান জানাচ্ছি সৈয়দ সুলতান রাজ।

Member : Insurance BD Group (বাংলাদেশ বীমা গোষ্ঠী)

 

[ আপনিও পারেন  “Insurance BD Group (বাংলাদেশ বীমা গোষ্ঠী)” এর একজন গর্বিত সদস্য হয়ে নিজের জ্ঞানচর্চা ও বীমা শিল্পের ইতিবাচক পরিবর্ত‍নে ভূমিকা রাখতে।  আগ্রহী ব্যক্তিগন Insurance BD Group (বাংলাদেশ বীমা গোষ্ঠী) এ যুক্ত হতে এই লিংকে ক্লিক করুন- https://www.facebook.com/groups/533586794169725/ ]



ব্লগটির ক্যাটাগরিঃ পাঠক কলাম

-- ব্লগার Insurance BD Group এর অন্যান্য পোস্টঃ --
আমার সম্পর্কে
  • সর্বশেষ ব্লগ
  • জনপ্রিয় ব্লগ
1 4 3 7 3
আজকের প্রিয় পাঠক
2 6 8 6 8 5 6 4
মোট পাঠক